শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুমিল্লা বুড়িচংয়ে ৯ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক কারাগারে! কুমিল্লা দেবিদ্বার এলাহাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি প্রক্রিয়া গোপনে গঠনের অভিযোগ কুমিল্লায় সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলা নিরাপত্তায় থানায় জিডি কুমিল্লা তিতাসে জাগর স্বদিচ্ছা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে দরিদ্রদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ কুমিল্লা বুড়িচং প্রেস ক্লাবের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কুমিল্লায় শিশুকে তেঁতুলের লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ শেষে হত্যা, যুবকের মৃত্যুদণ্ড কুমিল্লায় প্রতারণার মামলায় জেল থেকে বের হয়ে এবার অপহরণ করে চাঁদা আদায়ের ঘটনায় গ্রেফতার- ৩ কুমিল্লা সাংবাদিক ও কলামিস্ট জাহাঙ্গীর আলম জাবির এর মায়ের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত চৌদ্দগ্রাম প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন কুমিল্লায় কর্মরত সাংবাদিক সফিউল আলমকে প্রাননাশের হুমকি!থানায় সাধারণ ডায়েরি

লাকসামে ডাঃআলীর চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসার শেষ কোথায়

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ৪৯৩ Time View

লাকসামে ডাঃ আলীর  চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা শেষ কোথায়?

 

লাকসাম প্রতিনিধিঃ

ডাঃ আলীর বিরুদ্ধে একাদিক দূর্নীতির অভিযোগে   সিভিল সার্জন বরাবর লিখিত অভিযোগ
কুমিল্লার লাকসামে ডাঃ মোঃ আবদুল আলীর বিরুদ্ধে অপচিকিৎসার অভিযোগ উঠেছে। গত ২৯ আগষ্ট অপচিকিৎসায় ক্ষতিগ্রস্ত রোগীর পিতা কুমিল্লা জেলার সিভিল সার্জনের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগকারী উপজেলার নরপাটি (তেলিপাড়া) গ্রামের মৃত মমতাজ মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নজরুল ইসলামের মেয়ে বিলিকিস আক্তারকে গত ২৪ আগষ্ট লাকসাম মা-মনি লাইফ কেয়ার হাসপাতালে বাচ্চা ডেলিভারির জন্য ভর্তি করান। ভর্তি পর ডাঃ আবদুল আলী ও জুয়েল তালুকদার মিলে সিজার অপরেশন করার প্রস্ততি নেয়। অপারেশন করার সময় ডাঃ আবদুল আলী বলে রোগীর এপেন্ডিসসাইটিস রয়েছে, বাড়তি ২ হাজার টাকা দিতে হবে, না দিলে রোগীর সমস্যা হবে। রোগীর বাবা বাড়তি টাকা প্রদান করলে সিজার ও এপেন্ডিসাইটিস অপারেশন করা হয়। অপারেশন করার পর থেকে রোগীর অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। পেটে পচন ধরে ফুলে যায়। ৪দিন পর মা-মনি লাইফ কেয়ার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোন প্রকার কাগজপত্র ছাড়া রোগীকে রিলিজ প্রদান করে। রোগীর অবস্থা আরো অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। রোগীর বাবা ডাঃ আবদুল আলী ও জুয়েল তালুদারের অপচিকিৎসার বিচার চান।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ডাঃ আবদুল আলী প্রায় ১৫বছর ধরে লাকসামে সিজার বানিজ্য করে আসছে। ২০২০সালে লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। পরে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গাইনি কনসালটেন্ট হিসেবে বদলী করা হয়। বর্তমানে মনোগরগজ্ঞ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অনিয়মিত দায়িত্ব পালন করছে। রোগী বিলকিস আক্তার বলেন “ডাঃ আবদুল আলী আমাকে জবাই করে দিয়েছে, আগে আমার এপেন্ডিসসাইটিস ছিল না, আমি সঠিক বিচার চাই”।

অভিযোগের ব্যাপারে জানতে ডাক্তার আলীর মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

(ডাঃ আলী 01740-606039)

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 dailysomoyarbangladesh.com
Developed by: A TO Z IT HOST
Tuhin